সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭

অনলাইন ডেস্ক

Nov. 15, 2020, 5:30 p.m.

প্রধানমন্ত্রীর কোস্টগার্ডকে যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ার উদ্যোগ
প্রধানমন্ত্রীর কোস্টগার্ডকে যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ার উদ্যোগ
প্রধানমন্ত্রীর কোস্টগার্ডকে যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ার উদ্যোগ - ছবি: সংগৃহিত

সরকার বাংলাদেশ কোস্টগার্ডকে আরও বৃহৎ পরিসরে দায়িত্ব পালনে সক্ষম একটি আধুনিক ও যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

রবিবার কোস্টগার্ডের দু’টি অফশোর পেট্রল ভেসেল, পাঁচটি ইনশোর পেট্রল ভেসেল, দু’টি ফাস্ট পেট্রল বোট এবং বাংলাদেশ কোস্টগার্ড বেইস, ভোলা’র কমিশনিং প্রদানকালে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে মূল অনুষ্ঠানস্থল চট্টগ্রামের কোস্টগার্ড বার্থ পতেঙ্গা’র সঙ্গে যুক্ত হন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘নতুন নতুন দায়িত্ব পালনে সক্ষম করে তুলতে আমরা কোস্টগার্ডকে একটি আধুনিক ও যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছি।’

তিনি বলেন, বিস্তীর্ণ উপকূলীয় এলাকা এবং সামুদ্রিক জলসীমার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখা, মৎস্যসম্পদ রক্ষা, দেশের সমুদ্রবন্দরের নিরাপত্তা বিধান, চোরাচালান ও মাদকবিরোধী অভিযান এবং ডাকাত দমনসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে উপকূলীয় জনগণের জানমাল রক্ষায় কোস্টগার্ডের ভূমিকা উত্তরোত্তর বাড়ছে।

জাটকা নিধন রোধে এবং মা ইলিশ রক্ষায় কোস্ট গার্ডের প্রশংসনীয় ভূমিকা রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “বিগত প্রায় ১২ বছরে কোস্ট গার্ডে’র জন্য বিভিন্ন আকারের ৫৫টি জাহাজ ও জলযান নির্মাণ করা হয়েছে। পটুয়াখালী অঞ্চলে নিজস্ব প্রশিক্ষণ বেইস ‘বিসিজি বেইস অগ্রযাত্রার’ মাধ্যমে কোস্ট গার্ডের জনবলের প্রশিক্ষণ সক্ষমতা বৃদ্ধি করা হয়েছে।”

তিনি আরো বলেন, ‘এ বাহিনীর সদস্যরা স্বল্পতম সময়ে সুবিশাল সমুদ্র ও উপকূলীয় এলাকার মানুষের জান-মালের নিরাপত্তায় অসামান্য সাফল্য অর্জন করেছে।’

প্রধানমন্ত্রীকে অনুষ্ঠানে কোস্টগার্ডের একটি সুসজ্জিত চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করে। কোস্টগার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার অ্যাডমিরাল মো. আশরাফুল হক অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন।

তিনি প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে অনুষ্ঠানে অধিনায়কদের হাতে ‘কমিশনিং ফরমান’ হস্তান্তর করেন। নব্য কমিশনিংকৃত ৯টি জাহাজের ওপর অনুষ্ঠানে একটি ভিডিও চিত্র ও পরিবেশিত হয়।