শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

অনলাইন ডেস্ক

Jan. 9, 2022, 7:32 p.m.

মিশা-জায়েদের বিরুদ্ধে জিডি
মিশা-জায়েদের বিরুদ্ধে জিডি
শনিবার রাতে রাজধানীর তেজগাঁও থানায় এ জিডি করা হয়েছে। - ছবি:

বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির ২৪০ জন সদস্যের চাঁদা নিয়ে রশিদ না দেওয়ার অভিযোগে বর্তমান কমিটির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানসহ কার্যকরী কমিটির বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) লিপিবদ্ধ করা হয়েছে।

শনিবার রাতে রাজধানীর তেজগাঁও থানায় এ জিডি করা হয়েছে। ২৪০ জন শিল্পীর পক্ষে জিডি করেছেন মকবুল হোসেন আরমান। থানায় লিপিবদ্ধ হওয়া জিডির নম্বর ৩৮৮।

জিডিতে বলা হয়েছে, ‘বার্ষিক চাঁদা হিসেবে জনপ্রতি ২৪০০ টাকা করে ২৪০ জন সদস্য শিল্পী সমিতি কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত জাকির ও জামালের কাছে জমা দিয়েছেন। তবে চাঁদার রশিদ সাথে সাথে দেওয়ার কথা থাকলেও বিগত ১৫ দিন ধরেই দিচ্ছি দিচ্ছি বলে দিচ্ছে না। দায়িত্বপ্রাপ্ত জাকির ও জামাল অভিযোগ তুলেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপর। তারা নাকি রসিদে স্বাক্ষর করছেন না। চাঁদা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিল আজ (শনিবার)। কিন্তু আমরা আমাদের চাঁদা জমা দেওয়ার কোনো রশিদ পাইনি। কিন্তু মিশা-জায়েদ খান প্যানেলের সব সদস্যদের চাঁদার রশিদ দেওয়া হয়েছে।

জিডিতে বাদী আরও অভিযোগ করেছেন, ‘একটি বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পারলাম, আমাদের টাকায় রশিদ কেটে মিশা-জায়েদ সদস্যদেরকে পাঠিয়ে বলছে- তোমাদের টাকা আমি দিয়ে দিলাম। আজ ৮ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৬টায় জাকির ও জামালের কাছে রশিদ চাইতে গেলে তারা বলে- আপনাদের টাকা ফেরত নিয়ে যান। জায়েদ খান নিয়মিত অফিস করলেও আমাদের রশিদে স্বাক্ষর করেনি। মিশা-জায়েদ প্যানেলের সদস্যরা নিজেদের প্যানেলের স্বার্থেই এই পন্থা অবলম্বন করেছে। তাই ভবিষ্যতের জন্য ডায়েরি করা প্রয়োজন।’

চাঁদার রসিদ না দেয়ার বিষয়ে জানতে শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আগামী ২৮ জানুয়ারি শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে বর্তমান কমিটির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের নেতৃত্বে একটি প্যানেলে নির্বাচন করবে। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্যানেলে নেতৃত্ব দেবেন একুশে পদকজয়ী অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন ও অভিনেত্রী নিপুণ।

ঘটনার প্রসঙ্গে আসন্ন নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নিপুণ জানান, আমি শুনেছি অনেক শিল্পীরা চাঁদা দিলেও তা গ্রহণ করছে না সমিতি। রশিদ দিচ্ছে না। আবার যার রশিদ তাকে না দিয়ে বিভিন্নজনকে রশিদের ছবি পাঠানো হচ্ছে। এটা তো অন্যায়। আমি জেনেছি ২৪০ জন সদস্যদের পক্ষ থেকে জিডি করা হয়েছে। সামনে নির্বাচন। হয়তো সেখানে প্রভাব ফেলতেই এ ধরনের কর্মকাণ্ড ঘটানো হচ্ছে।