নিজস্ব প্রতিবেদক

Feb. 12, 2020, 4:04 p.m.

বরিশালে আইজিপি: সাগর-রুনি হত্যা তদন্তে পুলিশের ব্যর্থতা নেই
বরিশালে আইজিপি: সাগর-রুনি হত্যা তদন্তে পুলিশের ব্যর্থতা নেই
আইজিপি - ছবি:

বরিশালে বাংলাদেশ পুলিশের প্রধান ইন্সেপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটওয়ারী বলেছেন, সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা তদন্তে পুলিশের ব্যর্থতা নেই। মার্ডার কেসের ক্ষেত্রে বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও কোনটির ক্লু তাৎক্ষণিক পাওয়া যায়, আবার কোনটিতে সময় লাগে। সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির হত্যার তদন্তে পুলিশ সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। প্রতিটি তথ্য পুঙ্খানোপুঙ্খ যাচাই-বাছাইয়ের কারণেই সময় বেশি লাগছে।

গতকাল বুধবার দুপুর ১২টায় বরিশাল জেলা পুলিশ লাইন্সে জেলা পুলিশের ব্যারাক ভবন, গৌরনদী সার্কেল অফিস ও আগরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

আইজিপি বলেন, সাগর-রুনি হত্যাকা- নিয়ে কোনো ধরণের চাপের মুখে নেই। সাগর-রুনি হত্যাকা-ের মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা বা সংস্থা পরিবর্তনের বিষয়টি আদালতের। তবে তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তনের জন্য পরিবার আদালতে আবেদন করতে পারেন। আদালত চাইলে অবশ্যই তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা হবে।

পুলিশ প্রধান বলেন, সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারণে ধর্ষণের মত জঘন্য ঘটনা বেড়েছে। পুলিশের তালিকায় বিষটি উঠে এসেছে। সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে এই এধরণের অপরাধ প্রতিরোধ করতে হবে। যেখানেই এই ধরণের ঘটনা ঘটবে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে এই ব্যাধি মোকবেলায় প্রতিটি পরিবারের ছেলে মেয়েকে সেই লক্ষ্যে গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

আইজিপি বরিশাল পুলিশ লাইন কম্পাউন্ডের ভিতরে নব নির্মিত পুলিশ বিভাগের সার্কেল এ.এসপি অফিস কাম বাসভবন, পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের ১২টি ব্যারাক ভবন ও বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার আগুরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র সহ ৬০টি তদন্ত কেন্দ্র ভবনের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ধোধন করেন।

ভবন উদ্বোধন ও দোয়া মোনাজাতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বারা) পিপিএম, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বিপিএম (বার), বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম বিপিএম (বার), জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুপার আ. রাকিবসহ বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপার ও পুলিশ কর্মকর্তারা।