মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬

অনলাইন ডেস্ক

March 10, 2020, 8:28 p.m.

করোনা নিয়ে ডা. জাহাঙ্গীর কবিরের পরামর্শ
করোনা নিয়ে ডা. জাহাঙ্গীর কবিরের পরামর্শ
ডা. জাহাঙ্গীর - ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে অনেকেই। কিন্তু সবাই মারা যায়নি। যাদের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি, তারাই বেঁচে আছে। শুধু করোনা নয়, আরও অনেক রকম ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে প্রতিবছর অনেক মানুষ মারা যাচ্ছে। কারণ তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী ছিল না।

মাস্ক পরা, আক্রান্ত ব্যক্তির থেকে দূরে থাকা, হাত ধোয়া, খাবার ভালোভাবে সেদ্ধ করা ইত্যাদি সতর্কতার পাশাপাশি শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করার মাধ্যমে যেকোনো ভাইরাসকে প্রতিহত করা সম্ভব। জেনে নিন সেজন্য কোন কাজগুলো করতে হবে-

* প্রথমেই খাবারের বিষয়টিতে সতর্ক হতে হবে।

* চিনি খাওয়া বন্ধ করতে হবে। কারণ যেকোনো প্যাথোজেন সুগারের কারণে বৃদ্ধি পায়। সুগার আমাদের শরীরে ইনফ্লামেশনও তৈরি করে।

* প্রসেসড ফুড ও কেমিক্যালযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। এসব লিভারকে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত করে।

* শারীরিক চাপের পাশাপাশি আমরা বিভিন্ন রকম মানসিক চাপে থাকি। এটি আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। তাই মানসিকভাবে সব সময় শক্তিশালী থাকতে হবে।

* মানসিকভাবে সুস্থ থাকতে হলে পর্যাপ্ত ঘুম প্রয়োজন। রাত না জেগে দ্রুত ঘুমাতে যেতে হবে এবং খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠতে হবে।

* সকালের রোদে নিয়মিত হাঁটুন। এটি আপনাকে উৎফুল্ল থাকতে সাহায্য করবে।

* ভাইরাসের একমাত্র ওষুধ হলো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো। তাই ভাইরাস থেকে দূরে থাকতে শরীরচর্চা করুন।

* যারা সত্যিই অসুস্থ, তারা শরীরচর্চা থেকে বিরত থাকুন। কারণ অসুস্থতার সময় আমাদের শরীরের মাসল এই এক্সারসাইজ নেয়ার জন্য তৈরি থাকে না। তাই অসুস্থ অবস্থায় বিশ্রাম নিন।

* মানসিক চাপ কমাতে মেডিটেশন করতে পারেন। মনোযোগ দিয়ে প্রার্থনা করলেও মানসিক প্রশান্তি পাবেন।

* স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে নিয়মিত। যেসব খাবারে পুষ্টি মিলবে শুধু সেসব খাবারই খান।

* রোজা রাখলে বা উপবাস করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক বেশি বৃদ্ধি পাবে। যখন আমরা বারবার খাবার খাই তখন শরীর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর সময় পায় না। যখন আমরা না খেয়ে থাকি তখনই শরীর এই ক্ষমতা উন্নত করতে পারে।

* আতঙ্কিত হওয়া যাবে না। কারণ আতঙ্কিত হলে তা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতায় খারাপ প্রভাব ফেলে।

* মানসিকভাবে সতেজ থাকতে নিয়মিত ব্রিদিং করুন। এটিও আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করবে।