বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০, ১ শ্রাবণ ১৪২৭

অনলাইন ডেস্ক

March 19, 2020, 11:20 p.m.

জীবনের নিরাপত্তা চেয়েছেন বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসকরা
জীবনের নিরাপত্তা চেয়েছেন বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসকরা
বৃহস্পতিবার হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন সর্বস্তরের চিকিৎসক - ছবি:

নোভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) থেকে নিজেদের নিরাপত্তা চেয়ে পরিচালকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেছেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন সর্বস্তরের চিকিৎসকরা। স্মারক লিপিতে তাঁরা ৫ দফা দাবী তুলে ধরেন।

দাবী গুলোর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হলোঃ- প্রত্যেক চিকিৎসকের জন্য পিপিই সরবরাহ করতে হবে, দর্শনার্থী নিয়ন্ত্রন ও চিকিৎসকেদের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা উন্নত করন, জরুরী ভিত্তিতে শূন্য পদ পূরনসহ পর্যাপ্ত চিকিৎসক পদায়ন,

জরুরী বিভাগে রোগীদের স্ক্রিনিং আউট করে শুধুমাত্র উচ্চ ঝুঁকি সম্পন্ন রোগীদের আইসল্যুশনের ব্যবস্থা করা, সব ধরনের সাইন্টিফিক সেমিনার ও সভা, সমাবেশ বন্ধ ঘোষনা এবং বায়োমেট্রিক হাজিরা সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ রাখতে হবে।

স্মারকলিপি প্রদানকালে সাংবাদিকদের অন্তঃ বিভাগ চিকিৎসক পর্ষদের সভাপতি ডাঃ সুদীপ কুমার হালদার বলেন, বর্তমানে হাসপাতালে কলেজের শতাধিক সিনিয়র চিকিৎসকের দিকনির্দেশনায় মিডলেভেলের শতাধিক চিকিৎসক ও দেড় শতাধিক ইন্টার্ন চিকিৎসকরা প্রতিদিন গড়ে ৫ হাজার রোগীর চিকিৎসা প্রদান করে থাকেন।

কিন্তু তাঁদের জন্য ব্যক্তিগত নিরাপত্তার কোনো ব্যবস্থা নেই। তিনি বলেন, হাঁচি-কাশিসহ সব ধরনের সংক্রমণ নিয়ে রোগীরা হাসপাতালে ঢুকছেন।

তাঁদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই হাসপাতালে ভর্তি করা হচ্ছে। নূন্যতম নিরাপত্তাহীন অবস্থায় চিকিৎসকদের ওই রোগীদের চিকিৎসা দিতে হচ্ছে। তাই জরুরী বিভাগে রোগীদের স্ক্রিনিং আউট করে শুধুমাত্র উচ্চ ঝুঁকি সম্পন্ন রোগীদের আইসল্যুশনের ব্যবস্থা করার নিয়ম চালু করতে হবে।

এ সময় আউটডোর ডর্ক্টস এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ নূরুন্নবী চৌধুরী তুহিন বলেন, নৈতিক কারণে আমারা ডেঙ্গু পরিস্থিতির সময় দায়িত্ব পালন করেছি। তখনো একই অবস্থা ছিল। তখন আমাদের চিকিৎসকদের মধ্যে বেশ কয়েকজন অসুস্থ্য হয়ে ছিলেন।

কিন্তু করোনাভাইরাস ডেঙ্গু’র চেয়ে ভয়াবহ হওয়া সত্ত্বেও আমাদের নূন্যতম নিরাপত্তা নেই। তাই আমরা আমাদের বিভিন্ন দাবী তুলে ধরেছি। খুব দ্রুততার সাথে এই সকল দাবী পূরণ না হলে আমরা আমাদের পরবর্তি কর্মসূচী গ্রহন করবো।

এদিকে হাসপাতালের সর্বস্থরের চিকিৎসকদের উপরক্ত দাবীর সাথে একাত্বতা প্রকাশ করেছেন কলেজের অধ্যক্ষসহ সিনিয়র চিকিৎসক এবং হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ মুহাম্মদ আব্দুল রাজ্জাক।

তিনি বলেন, চিকিৎসকদের দাবীগুলো খুবই যুক্তিক। আমাদের হাসপাতালে করোনভাইরাস প্রতিরোধে চিকিৎসকদের জন্য তেমন নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেই। বিষয়টি নিয়ে আমরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও মন্ত্রনালয়ের যোগযোগ করছি।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন অন্তঃ বিভাগ চিকিৎসক পর্ষদের সভাপতি ডাঃ সুদীপ কুমার হালদার, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আশিক দত্ত, আউটডোর ডর্ক্টস এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ নূরুন্নবী চৌধুরী তুহিন, সাংগঠিনিক সম্পাদক ডাঃ মোস্তফা কামাল, বঙ্গবন্ধু ক্লাবের আহ্বায়ক ডাঃ তরিকুল ইসলাম প্রমুখ।