বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭

অনলাইন ডেস্ক

May 30, 2019, 12:04 a.m.

ঈদে গহনা কিনতে চাচ্ছেন?
ঈদে গহনা কিনতে চাচ্ছেন?
পছন্দের গহনায় কারিনা - ছবি: সংগৃহীত

ঈদে নিজের বা প্রিয়জনের জন্য অনেকেই ছোট হলেও একটা গহনা কেনার কথা ভাবেন। ‍যারা স্বর্ণের গহনা কিনতে চাচ্ছেন, জেনে নিন গহনা কেনার সময় ভালোমানের স্বর্ণ কীভাবে চিনবেন? স্বর্ণের মান মাপা হয় ক্যারেট দিয়ে। ২৪ ক্যারেট স্বর্ণ মানে ৯৯.৯ শতাংশ খাঁটি স্বর্ণ। ব্যবহার উপযোগী গহনা ২২ ক্যারেট স্বর্ণ দিয়েই তৈরি হয়। ২২ ক্যারেট স্বর্ণ মানে ৯১.৬ শতাংশ খাঁটি স্বর্ণ। ক্যারেট হিসেবে তাতে ২ ক্যারেট বাদ গেলে ১ আনা ২ রতি খাদ বা ভেজাল থাকবে। আপনি যদি ২১ ক্যারেট গহনা কিনতে চান তাহলে তাতে খাদ থাকবে ২ আনা আর ১৮ক্যারেট কিনলে খাদ থাকবে প্রতি ভরিতে ৪ আনা। ইদানিং বড় বড় স্বর্ণালংকারের দোকানগুলোতে স্পেকট্রোমিটার নামের খাদ মাপার মেশিন রয়েছে। মেশিনই বলে দেবে কত ক্যারেটের স্বর্ণ আপনাকে দেওয়া হয়েছে। স্বর্ণ কেনার আগে হলমার্ক BIS চিহ্ন দেখে নিন। এবার দামটাও জানুন, দেশে ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম ৪৮ হাজার ৯৮৮ টাকা। ২১ ক্যারেট ৪৬ হাজার ৬৫৬ টাকা এবং ১৮ ক্যারেট স্বর্ণের দাম ৪১ হাজার ৬৪০ টাকা। এছাড়া প্রতিভরি সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণ ২৭ হাজার ৫৮৫ টাকা। যদি হীরার গহনা কিনতে চান তাহলে অবশ্যই মান নিশ্চিত করা সার্টিফিকেট নিয়ে নেবেন। আল-হাসান ডায়মন্ড গ্যালারির ম্যানেজার সুমন বলেন, কেনার পরে কেউ যদি হীরা বা স্বর্ণের গহনা পরিবর্তন করতে চান তবে মজুরি ও ১০ শতাংশ স্বর্ণের দাম বাদ দিয়ে অন্য গহনা নিতে পারবেন। আর যদি বিক্রি করেন তাহলে মজুরি ও ভ্যাট ছাড়া বর্তমান বাজার মূল্যের ২০ শতাংশ টাকা কেটে বাকি টাকা ফেরত দেওয়া হয়। এজন্য গহনা কেনার পর অবশ্যই দোকানের রশিদ সংরক্ষণ করুন। ১৬ আনাতে এক ভরি আর গ্রামের হিসাবে প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম)। আমাদের দেশে ২২ এবং ২১ ক্যারেট স্বর্ণের গহনাই এখন বেশি ব্যবহার করা হয়।

    এই সম্পর্কিত আরো পড়ুন...