মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

অনলাইন ডেস্ক

May 21, 2020, 10:41 p.m.

দেশের এক কোটির বেশি গ্রাহক বিদ্যুৎহীন
দেশের এক কোটির বেশি গ্রাহক বিদ্যুৎহীন
সংগৃহীত। - ছবি:

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে সারা দেশে এক কোটির বেশি গ্রাহক বিদ্যুৎহীন অবস্থায় আছেন। ঝড়ের কারণে বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইনের ওপর গাছ ভেঙে পড়ায় আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যেও বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হবে না বলে জানা গেছে।

বিদ্যুৎ না থাকায় কোথাও কোথাও মোবাইল নেটওয়ার্কও বন্ধ হয়ে গেছে। কোথাও কোথাও নেটওয়ার্ক দুর্বল।

দেশের দক্ষিণ, পশ্চিম ও উত্তরের ২৫ জেলার ১ কোটি ৫০ লাখ গ্রাহক ঝড়ের আগেই বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। এসব জেলার বেশির ভাগ স্থানে ঝড় শুরু হওয়ার ১২ থেকে ২৪ ঘণ্টা আগেই বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেয় বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলো।

বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলো আশা করছে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার মধ্যেই বেশির ভাগ গ্রাহক এবং কালকের মধ্যে বাকিরা আবার বিদ্যুৎ-সুবিধা পাবেন। সেভাবেই কাজ চলছে। দেশে মোট গ্রাহকের সংখ্যা ৩ কোটি ৬৪ লাখ।

বিদ্যুৎ. জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিভাগ ও এর কোম্পানিগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছেন।

বৈঠকে অংশ নেন বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), পিজিসিবি, আরইবি, নর্থ ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড (এনডব্লিওপিজিসিএল) বিদ্যুৎ বিভাগের বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা।

নসরুল হামিদ বলেন, যে সমস্যাই হোক না কেন, অতিদ্রুত বিদ্যুতের ব্যবস্থা করুন। হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনে জেনারেটর সরবরাহ করে বিদ্যুতায়নের উদ্যোগ নিন। সার্বিক পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করার জন্য বিদ্যুৎ বিভাগকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিদ্যুৎ বিভাগ, পল্লী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডসহ (আরইবি) অন্যান্য বিতরণ সংস্থার কর্মকর্তারা জানান- বরিশাল, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, পিরোজপুর, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, যশোর, নড়াইল, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী, পাবনা, নাটোর ও বগুড়াতে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এসব অঞ্চলের অধিকাংশ স্থানের বিদ্যুৎ সরবরাহ বৃহস্পতিবার রাত ১২টার আগে স্বাভাবিক হবে, তবে কিছু এলাকায় কালকেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে না।

কক্সবাজার এবং চট্টগ্রাম এলাকার বিদ্যুৎ বিতরণে খুব একটা ক্ষতি হয়নি বলে জানিয়েছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড। হবে পিডিবির বিতরণ এলাকার মধ্যে সন্দ্বীপ, টাঙ্গাইল এবং জামালপুরে কিছুটা ক্ষতি হয়েছে, যা আজ বৃহস্পতিবারের মধ্যে ঠিক হয়ে গেছে।

ঝড়ের কারণে ওজোপাডিকোর ২১ জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। সংস্থাটির ১২ লাখ ৩৬ হাজার গ্রাহক রয়েছে। ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠানটির প্রায় ৯ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। সব থেকে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছেন আরইবির গ্রাহকেরা। দেশের সব থেকে বড় বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা আরইবির ১ কোটি ২৫ লাখ গ্রাহক ঝড়ের কবলে পড়ে বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েন। সংস্থাটির সারা দেশে ২ কোটি ৮৫ লাখ গ্রাহক রয়েছেন। এর মধ্যে কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হলেও অধিকাংশ এলাকা এখনো বিদ্যুৎহীন।