মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবার ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

July 20, 2020, 10:03 p.m.

সরকারি প্রস্তাবণার বিরুদ্ধে শিক্ষা বোর্ড কর্মচারীদের আন্দোলন!
সরকারি প্রস্তাবণার বিরুদ্ধে শিক্ষা বোর্ড কর্মচারীদের আন্দোলন!
মানববন্ধন । - ছবি: ভোরের আলো।

বরিশাল সরকারি বরিশাল কলেজের নামকরণ অশ্বিনী কুমারের নামে করার সরকারি প্রস্তাবনার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমছে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের কর্মচারীরা। সরকারের বিরুদ্ধে সরকারের একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরা কিভাবে ব্যানার নিয়ে অংশগ্রহণ করে সেটা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তবে এব্যাপারে বরিশার শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুস বিষয়টি তাকে না জনিয়ে করা হয়েছে দাবি করেছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের কর্মচারী সংঘের ব্যানারে শিক্ষা বোর্ডের কর্মচারীদের একাংশ সরকারি বরিশাল কলেজের নাম অশ্বিনী কুমারের নামে করার সরকারি প্রস্তাবনার বিরুদ্ধে অশ্বিনী কুমার হলের সামনে মানববন্ধন করেছে। কলেজের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের একাংশের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে শিক্ষাা বোর্ড কর্মচারীরা ব্যানার নিয়ে ওই মানববন্ধনে অংশ নেয়। এখনো ওই ব্যানারটি শিক্ষা বোর্ড ভবনের দেয়ালো টাঙানো আছে। ব্যানারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং দক্ষিণাঞ্চলের রাজনৈতিক অভিভাবক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর ছবি শোভা পাচ্ছে।

সরকারি প্রস্তাবনার বিরুদ্ধে সরকারের কোন প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরা সরাসরি আন্দোলনের নামতে পারে কিনা জানতে চাইলে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, যারা ওই ব্যানার নিয়ে আন্দোলনে গিয়েছেন তারা আগে থেকে কোন কিছু কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেননি। কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামলেও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে তিনি এব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে রাজী হননি।

বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, সরকারি কোন প্রস্তাবনার বিরুদ্ধে সরকারের কোন প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের আন্দোলনে নামার সুযোগ নেই। এটা সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার সামিল। বাইরে যে কোন বিষয় নিয়ে সাধারণ নাগরিকরা আন্দোলন করতেই পারে। কিন্তু সরকারের প্রস্তাবনার বিরুদ্ধে সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের আন্দোনে নামা অস্পূর্ণ বেআইনী। তা ছাড়া এটা বোর্ড কর্মচারীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ও নয়।

বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা বলেন,  বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে কর্মচারী ইউনিয়নের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে অনেক আগে। বোর্ডে কর্মচারীদের এখানে দুটি গ্রুপ আছে। এখন কমিটি পাওয়ার জন্য দুই গ্রুপই চেষ্টা চালাচ্ছে। এর একটি গ্রুপ মেয়রের আস্থাভাজন হতে সরকারি বরিশাল কলেজের নামকরণ নিয়ে ছাত্রদের আন্দোলনের সঙ্গে যোগ দিয়েছে। ওই গ্রুপ মেয়রের কাছে আস্থা অর্জনের জন্য শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধেও মেয়রের কাছে নানা অভিযোগ তুলছেন। 

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারি মাসে নাগরিকিেেদর দাবির প্রেক্ষিতে সরকারি বরিশাল কলেজকে মহাত্মা অশ্বিনী কুমার দত্তর নামে নামকরণের জন্য জেলা প্রশাসক একটি চিঠি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই চিঠি পাওয়ার পর সরকারি বরিশাল কলেজের নাম অশ্বিনী কুমারের নামে করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরপর মন্ত্রণালয় বরিশাল শিক্ষা বোর্ডকে একটি সুপারিশ পাঠাতে আদেশ দেয়। এরপরই সরকারি বরিশাল কলেজের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নামে। কলেজের নামকরণ আগের জায়গায় রাখা এবং না রাখা নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে আন্দোলন শুরু হয়। সরকারের প্রস্তাবনার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়াদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের কর্মচারীদের একাংশ।