বুধবার, ২৮ অক্টোবার ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭

অনলাইন ডেস্ক

Aug. 19, 2020, 9:12 p.m.

আসছে ৩৫ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ
আসছে ৩৫ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ
সংগৃহীত। - ছবি:

সারাদেশে শুরু হতে যাচ্ছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩৫ হাজার ৩শ শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া। এ বছরের অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহেই এ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হতে পারে বলে জানা গেছে। জানা গেছে, এ পর্যায়ে প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে ২৫ হাজার ৩০০ জন এবং প্রায় ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত এ প্রস্তাব ইতিমধ্যে মন্ত্রীসভায় পাস হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর অনলাইনে এক মাস সময় দেয়া হবে আবেদনের জন্য। ফলে এবার প্রার্থী আবেদন করার পর সফটওয়্যারের মাধ্যমে অটোমেটিক ব্যক্তিগত ও একাডেমিক তথ্য যাচাই-বাছাই করা হবে। এতে করে আবেদন যাচাই-বাছাই করতে সময়ক্ষেপণ হবে না। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, প্রাক-প্রাথমিক ও সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে ইতোমধ্যে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি তৈরি করা হয়েছে। এবার আবেদন প্রক্রিয়া পুরোটাই অনলাইনে সম্পন্ন করতে হবে। আবেদনকারী নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে স্নাতক (সম্মান), স্নাতক (পাস) বা সমমান ডিগ্রি করা হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম আল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাথমিক পদ সৃজন করা হয়েছে। এসব পদে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে আমরা অনেক আগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছি। পাশাপাশি সহকারী শিক্ষকের শূন্য পদগুলো চিহ্নিত করে সেসব পদে নিয়োগ দিতে বলা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে কাজ শুরু করেছে ডিপিই। বিষয়টি নিয়ে ডিপিইর নিয়োগ শাখার উপ-পরিচালক আতিক বিন সাত্তার গণমাধ্যমকে বলেন, মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার পর আমরা নিয়োগ-সংক্রান্ত কার্যক্রমের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছি। ইতোমধ্যে আবেদন গ্রহণের জন্য ওয়েবসাইট ডেভেলপ (উন্নয়ন) করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে আবেদনকারীর আবেদন সম্পন্ন হলে সার্টিফিকেট ও জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে অটোমেটিক তথ্য যাচাই-বাছাই হয়ে যাবে। তিনি আরও বলেন, নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রাক-প্রাথমিক স্তরে ২৫ হাজার ৩০০ জন নিয়োগ দেয়া হবে। এটি প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন প্রকল্প-৪ (পিইডিপি) এর আওতাভুক্ত হলেও প্রকল্পের মেয়াদ শেষে এ স্তরের শিক্ষকদের রাজস্বখাতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এছাড়া শূন্য সব পদে নিয়োগ দিতে আরও ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে। দুই স্তরে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি তৈরি করা হয়েছে। অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।